শীত ও বসন্তের সন্ধিকালীন কয়েকটি পংক্তি | তুহিন খান

| সোমবার, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৭, ৪:১২ অপরাহ্ণ

 ১. ঋতুবিষয়ক সচেতনতা নেই তাই-

কোনদিনও বুঝতে পারিনি তোমার

হঠাত্‍ করে শাড়ি পরার রহস্য

ঠোঁটে লিপজেলের বদলে গন্দম

কানে কানটুপির বদলে রক্তজবা-

ঋতুবিষয়ক অজ্ঞতাহেতু এসব কিছুই

আমি কোনদিন বুঝতে পারিনি।

 

তবু শীতের ঝরাপাতা মাড়িয়ে নতুন

পাতাদের জন্মলগ্নে

আমাদের আবার দেখা হয়ে যায় কোন

এক আগুনমুখো মেলায়।

তুমি অবলীলায় শীত ঝেড়ে ফেলে

নাক থেকে ঘামের ঐশ্বর্য মুছে

বলো-‘এখনো সোয়েটার!’

খেয়াল করে দেখি,

এখনো আমার গায়ে অসংখ্য অতিথি

পাখির পালক লেগে আছে,

তুমি সেগুলো ছুঁয়ে দিতেই

আমার শীতকালীন জড়তা ভেঙে দিয়ে

শত শত পাখি উড়ে যায় সাইবেরিয়ার দিকে!

 

২. বসন্তে নতুন পাতা দেখে তুমি বরাবর

উত্‍ফুল্ল হও।

আমি আগত শীতে ওদের নিয়তির

কথা ভেবে চুপ থাকি।

পরের শীতে ঐ পাতার ওপর বসেই

তুমি

অতিথিপাখিদের ডানার ওমে, আগত

ফাল্গুনের নতুন পাতাদের গল্প বলো অবিরাম।

 

আমি ভাবি, এই ভালো।

তুমি আমাকে নতুন পাতার সৌন্দর্য

বোঝাও।

আর আমি তোমাকে ভালোবাসি

ঝরাপাতার মত,

কারণ আমি জানি-

(বসন্তের) সব পাতাই শেষপর্যন্ত

(শীতের) ঝরাপাতা।

 

উৎসর্গঃ একদা শীতসকালের শাড়িপরা স্নিগ্ধাকে।

 

Bangalnama/বাঙালনামা/ডব্লিউকে

Please follow and like us:
0