কথাশিল্পী শওকত ওসমান’র জন্মশতবার্ষিকী সোমবার

| রবিবার, জানুয়ারি ১, ২০১৭, ১০:১৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ● বাংলা সাহিত্যের খ্যাতনামা কথাশিল্পী ও শক্তিশালী লেখক শওকত ওসমানের জন্মশতবার্ষিকী ২ জানুয়ারি। চল্লিশ দশক থেকে সাহিত্যের বিভিন্ন ঘরানায় অত্যন্ত শাবলিলভাবে লেখালেখি করে বাংলাসািহত্যকে সমৃদ্ধ করেন তিনি।

১৯১৭ সালের এইদিনে তিনি অবিভক্ত বাংলার পশ্চিমবঙ্গের হুগলী জেলার সবলসিংহপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রকৃত নাম শেখ আজিজুর রহমান। তার পিতার নাম শেখ মোহাম্দ ইয়াহিয়া। ছাত্রজীবন থেকেই কথাশিল্পী শওকত ওসমান বৃটিশ শাসনবিরোধী ও বাঙালি জাতীয়তাবাদ,বাঙালি শিল্প-সংস্কৃতির বিভিন্ন ঘরানায় সািহত্য চর্চা ও লেখালেখি শুর করেন। কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৪১ সালে বাংলাসাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর তিনি ঢাকায় চলে আসেন। ঢাকায় শিক্ষকতার মধ্যদিয়ে পেশাগত জীবন শুরু করেন। তিনি চট্টগ্রাম কমার্স কলেজে এবং পরবর্তীতে ঢাকা কলেজে শিক্ষকতা করেন। শুরু থেকেই তার গল্প ও উপন্যাসে সকল ধরণের অন্যায়,অবিচার,শোষনের বিরুদ্ধে গণমানুষের কথামালা এবং তাদের আশা-আকাংখা ওঠে আসে। ক্রমে পশ্চিমা শোষনের সমালোচনামূলক কথাসাহিত্যে তিনি বিপুল সৃষ্টিশীলতার সাক্ষর রাখেন।

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানী জান্তার অত্যাচার নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরে তিনি লিখেন ‘ জননী ’ এবং ‘ জাহান্নাম থেকে বিদায় ’ দুটি উপন্যাস। তিনি জীবিত থাকাকালেই ‘ জননী’ উপন্যাস বিশ্বের অন্যতম সেরা প্রকাশনা সংস্থা প্যাংগুইন ইংরেজী ভাষায় প্রকাশ করে।

কথাশিল্পী শওকত ওসমান একাধারে লিখেছেন গল্প,উপন্যাস,নাটক,প্রবন্ধ, ননফিকশন, অুনবাদ, স্মৃতিকথা। বিভিন্ন মাধ্যমে তার প্রকাশি গ্রন্থের সংখ্যা শতাধিক। এর মধ্যে উল্লেখযোগ গল্পগ্রন্থ হচ্ছে,ইশ্বরের প্রতিদ্বন্ধি,মনিব ও তার কুৃকুর,জন্ম যদি তব বঙ্গে,সাবেক কাহিনী,জুনু আপা ও অন্যান গল্প,উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে-জননী, ক্রীতদাসের হাসি,বনী আদম,রাজ উপাখ্যান,জাহান্নাম হতে বিদায়,পুরাতন খঞ্জর,জলাঙ্গী,দুই সৈনিক,নেকড়ে অরণ্যে।

শওকত ওসমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে শওকত ওসমান স্মৃতি সংসদ ও উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী যৌথভাবে ২ জানুয়ারি থেকে ঢাকায় দুদিনব্যাপী উৎসবের আয়োজন করেছে। কাল ঢাকায় সকাল সাড়ে দশটায় কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীতে শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তনে দুদিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন লেখক গবেষক আহমদ রফিক। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সঙ্গীত,আলোচনা,আবৃত্তি, নাটট,চলচ্চিত্র প্রদশর্নী।

 

Bangalnama/বাঙালনামা/বিএস/এমআর

Please follow and like us:
0